শনিবার শুরু ‘বিশেষ’ শিশু-কিশোরদের ক্রীড়া উৎসব

বেস্ট বায়োস্কোপ, ঢাকা: জাতীয় প্রতিবন্ধী ক্রীড়া সমিতির (এনএএসপিডি) আয়োজনে ও দেশের ওয়ালটনের পৃষ্ঠপোষকতায় শুরু হচ্ছে ‘বিশেষ শ্রেণির শিশু-কিশোরদের গ্রীষ্মকালিন ক্রীড়া উৎসব’। শনিবার শুরু দুইদিন ব্যাপী এই প্রতিযোগিতা রোববার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শেষ হবে।

শনিবার সকালে মোহাম্মদপুরের সরকারি শারীরিক শিক্ষা কলেজ মাঠে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করবেন নৌপরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান। এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ওয়ালটন গ্রুপের স্পোর্টস এন্ড ওয়েলফেয়ার বিভাগের প্রধান এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার (ডন) ও জাতীয় প্রতিবন্ধী ক্রীড়া সমিতির (এনএএসপিডি) মহাসচিব সেলিনা আক্তার।

গেল বছর ডিসেম্বর ওয়ালটন গ্রুপের পৃষ্ঠপোষকতায় অনুষ্ঠিত হয়েছিল ‘বিশেষ শ্রেণির শিশু-কিশোরদের শীতকালিন ক্রীড়া উৎসব’।

প্রতিবন্ধীদের ক্রীড়া উৎসবে বিভিন্ন প্রতিবন্ধী স্কুল ও সংগঠন থেকে প্রায় তিন শতাধিক প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করবে। ১৭টি ক্যাটাগোরিতে অনুষ্ঠিত হবে এই ক্রীড়া উৎসব। সাধারণত স্পেশাল ও প্যারা অলিম্পিকে যে ধরণের ইভেন্ট থাকে তার মধ্যে যেগুলো বাংলাদেশের সামর্থের মধ্যে রয়েছে সেগুলো নিয়ে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে।

এ বিষয়ে জাতীয় প্রতিবন্ধী ক্রীড়া সমিতির (এনএএসপিডি) মহাসচিব সেলিনা আক্তার বলেন, ‘জাতীয় প্রতিবন্ধী ক্রীড়া সমিতির পক্ষ থেকে ওয়ালটনকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। এ ধরণের পিছিয়ে পড়া অসহায় প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য এগিয়ে আসা খুবই প্রয়োজন। আমরা ২০০০ সাল থেকে সব ধরণের প্রতিবন্ধীদের নিয়ে কাজ করছি। বছরে বেশ কয়েকবার তাদের নিয়ে ক্রীড়া উৎসবের আয়োজন করি। জাতীয় পর্যায়ে আয়োজিত ক্রীড়া উৎসবে ২ হাজার ৩ হাজারের মতো বিশেষ শিশু-কিশোর অংশ নেয়। এবারের এই গ্রীষ্মকালীন আয়োজনে প্রায় তিন শতাধিক প্রতিবন্ধী শিশু-কিশোর অংশ নেবে।’

এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার বলেন, ‘এর আগে আমরা ওয়ালটন পরিবার ‘সুইড’ বাংলাদেশের সঙ্গে বিশেষ শিশু-কিশোরদের জন্য কাজ করেছি। গেল বছর থেকে এনএএসপিডি এর সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়েছি। তারেই ধারাবাহিকতায় এবারও তাদের সঙ্গে কাজ করতে যাচ্ছি। ওয়ালটন পরিবার সব সময় এই বিশেষ শ্রেণির শিশু-কিশোরদের নিয়ে কাজ করতে আগ্রহী। কারণ, আমাদের দেশের শিশুদের জন্যই খুব বেশি সুযোগ নেই। সেখানে প্রতিবন্ধী শিশুদের সুযোগের কী অবস্থা সেটা সহজেই অনুমেয়। স্টিফেন হকিংস সাধারণ লোক নন। কিন্তু তিনি জগৎ বিখ্যাত। উন্নত বিশ্বে প্রতিবন্ধী শিশুদের নানা ধরণের সুযোগ সুবিধা দেয়া হয়। সেগুলো কাজে লাগিয়ে তারা তাদের প্রতিভা বিকশিত করে। কিন্তু আমাদের প্রতিবন্ধী শিশুরা সেরকম সুযোগ পায় না। পেলে হয়তো তারাও অনেক বড় হতে পারত। কারণ, আমরা বিশ্বাস করি বাংলাদেশে অনেক প্রতিভাবান প্রতিবন্ধী শিশু রয়েছে। আমরা ওয়ালটন পরিবার এ ধরণের সব শিশুদের নিয়েই কাজ করতে চাই।’

বেস্ট বায়োস্কোপ স্পোর্টস
৪ আগস্ট ২০১৬

 

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: