ফেডারেশন কাপে আবাহনীর হ্যাটট্রিক শিরোপা

বেস্ট বায়োস্কোপ, ঢাকা: নবাগত বসুন্ধরা কিংসকে ৩-১ গোলে হারিয়ে ফেডারেশন কাপ-২০১৮ এর শিরোপা জিতেছে আবাহনী লিমিটেড। যা ফেডারেশন কাপে ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটির হ্যাটট্রিক শিরোপা। টানা তিন আসরে নিজেদের শ্রেষ্ঠত্ব ধরে রাখল ধানমন্ডির ক্লাবটি।

এই শিরোপা জয়ের মধ্য দিয়ে আবাহনী ছাড়িয়ে গেছে চির প্রতিদ্বন্দ্বি মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবকেও। এতোদিন আবাহনী ও মোহামেডানের ১০টি করে ফেড কাপের শিরোপা ছিল। এ যাত্রায় মোহামেডানকে পেছনে ফেলে এগিয়ে গেল আকাশী-নীল জার্সিধারীরা। আবাহনীর হয়ে ফাইনালে জোড়া গোল করেছেন নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড সানডে সিজোবা। একটি গোল করেছেন কেভন বেলফোর্ড। বসুন্ধরা কিংসের হয়ে একটি গোল করেছেন রাশিয়া বিশ্বকাপ খেলে আসা কোস্টারিকান ফরোয়ার্ড ড্যানিয়েল কলিনদ্রেস।

শুক্রবার বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে আবাহনী শুরু থেকে প্রভাব বিস্তার করে খেললেও ম্যাচের ২১ মিনিটেই পিছিয়ে পড়ে। এ সময় বসুন্ধরা কিংসের আলমগীর রানার নেট শট ফিরেয়ে দেন আবাহনীর গোলরক্ষক শহীদুল আলম সোহেল। সেই বল ডি বক্সের মধ্যে পেয়ে যান বসুন্ধরা কোস্টারিকান ফরোয়ার্ড কলিনদ্রেস। ডান পায়ে শট নেন। সোহেল ঝাপিয়ে পড়েও বলের নাগাল পাননি। বল তার গন্তব্যে পৌঁছে যায়। তার এই গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় নবাগত বসুন্ধরা কিংস।

অবশ্য বিরতির পর ফিরেই ম্যাচে সমতা ফেরায় ঐতিহ্যবাহী আবাহনী। ম্যাচের ৫০ মিনিটে রায়হানের থ্রো ইন থেকে বল পেয়ে ডান পাঁয়ের আলতো টোকায় বল জালে পাঠান আবাহনীর নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড সানডে সিজোবা। এটি ছিল তার ওয়ালটন ফেডারেশন কাপের ৩০তম আসরের পঞ্চম গোল। ৭৮ মিনিটে সিজোবা তার জোড়া গোল পূর্ণ করলে আবাহনী এগিয়ে যায় ২-১ ব্যবধানে। এ সময় রায়হানের বাড়িয়ে দেওয়া বল প্লেসিং শটে বসুন্ধরার গোলরক্ষককে পরাস্ত করে জালে পাঠান সানডে সিজোবা। এই গোলের মধ্য দিয়ে তিনি হয়ে যান এই আসরের সর্বোচ্চ গোলদাতা। ৮০ মিনিটে আবাহনীর বেলফোর্ড গোলের দেখা পেলে ব্যবধান হয় ৩-১। ম্যাচের ৮৬ মিনিটে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে উভয় দলের খেলোয়াড়রা। হাতাহাতি কা-ে দুই দলের চারজন লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন। তারা হলেন আবাহনীর নাবীব নেওয়াজ জীবন ও মামুন মিয়া এবং বসুন্ধরা কিংসের সুশান্ত ত্রিপুরা ও তৌহিদুল আলম সবুজ।

এরপর যোগ করা ৭ মিনিট ৯ জন নিয়েই খেলে উভয় দল। সেখানে অবশ্য আর কোনো গোল হয়নি। তাতে ৩-১ ব্যবধানের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে ঐতিহ্যবাহী আবাহনী।

ফেডারেশন কাপের চ্যাম্পিয়ন দল আবাহনীকে ট্রফি, মেডেল ও ৫ লাখ টাকা এবং রানার্স-আপ দল বসুন্ধরা কিংসকে ট্রফি, মেডেল ও ৩ লাখ টাকা প্রাইজমানি দেওয়া হয়। এ ছাড়া প্রতিটি দলকে ২ লাখ টাকা করে অংশগ্রহণ ফি দেওয়া হয়েছে। ফাইনালের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন আবাহনীর সোহেল রানা। তাকে ক্রেস্টের পাশাপাশি ওয়ালটন গ্রুপের পক্ষ থেকে একটি স্মার্টফোন দেওয়া হয়। টুর্নামেন্ট সেরা ও সর্বোচ্চ গোলদাতা (৬ গোল) হয়েছেন আবাহনীর নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড সানডে সিজোবা। তাকে ক্রেস্ট ও ওয়ালটন গ্রুপের পক্ষ থেকে একটি স্মার্টফোন দেওয়া হয়। ফেয়ার প্লে ট্রফি জিতে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র।

ফাইনাল শেষে উপস্থিত থেকে পুরস্কার বিতরণ করেন বাফুফের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও পেশাদার লিগ কমিটির চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম মুর্শেদী, এমপি, টাইটেল স্পন্সর ওয়ালটন গ্রুপের সিনিয়র অপারেটিভ ডিরেক্টর (গেমস অ্যান্ড স্পোর্টস) এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার (ডন)সহ অন্যান্যরা।

কোয়ার্টার ফাইনালে আরামবাগকে ৩-২ গোলে হারিয়ে সেমিফাইনালে ওঠে ঢাকা আবাহনী। দ্বিতীয় কোয়ার্টার ফাইনালে নবাগত সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবকে ২-১ গোলে হারিয়ে শেষ চার নিশ্চিত করে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। তৃতীয় কোয়ার্টার ফাইনালে চট্টগ্রাম আবাহনীকে ১-০ গোলে হারিয়ে সেমিফাইনালে নাম লেখায় শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র। আর চতুর্থ কোয়ার্টার ফাইনালে কলিনদ্রেসের হ্যাটট্রিকে টিম বিজেএমসিকে ৫-১ গোলে উড়িয়ে দিয়ে সেমিফাইনালের টিকিট পায় নবাগত বসুন্ধরা কিংস।

১৯ নভেম্বর অনুষ্ঠিত প্রথম সেমিফাইনালে শেখ জামালকে ৪-২ গোলে হারিয়ে ফাইনালে ওঠে আবাহনী। আর ২০ নভেম্বর দ্বিতীয় সেমিফাইনালে শেখ রাসেলকে ১-০ গোলে হারিয়ে ফাইনালে ওঠে বসুন্ধরা কিংস। আজ শুক্রবার অনুষ্ঠিত ফাইনালে বসুন্ধরা কিংসকে ৩-১ গোলে হারিয়ে শিরোপা জিতে নিয়েছে ঢাকা আবাহনী লিমিটেড। পাশাপাশি নিশ্চিত করেছে এএফসি ক্লাব কাপের টিকিটও।

বেস্ট বায়োস্কোপ স্পোর্টস
২৩ নভেম্বর ২০১৮

Comments

comments

Leave a Reply

Share via
1 Share
%d bloggers like this: