ফেডারেশন কাপ-২০১৮: বসুন্ধরার প্রথম নাকি আবাহনীর একাদশ?

বেস্ট বায়োস্কোপ, ঢাকা: দেখতে দেখতে শেষের পথে ফেডারেশন কাপ। আর একটি ম্যাচ। এরপরই পর্দা নামবে ফেডারেশন কাপের ৩০তম আসরের। এবারের আসরের ফাইনালে উঠেছে নবাগত বসুন্ধরা কিংস ও ঐতিহ্যবাহী ক্লাব ঢাকা আবাহনী লিমিটেড। শুক্রবার বিকেল সাড়ে চারটায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে শিরোপা নির্ধারনী ম্যাচে মুখোমুখি হবে দল দুটি।

পেশাদার লিগে আসা বসুন্ধরা কিংস এবারই প্রথম ফেডারেশন কাপে অংশ নিয়েছে। প্রথমবার অংশ নিয়েই তারা ফাইনালে উঠেছে। তাদের সামনে প্রথম শিরোপার হাতছানি। হাতছানি এএফসি ক্লাব কাপ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপে খেলার। অন্যদিকে আবাহনীর সামনে একাদশ শিরোপার হাতছানি। বসুন্ধরাকে হারিয়ে শিরোপা জিততে পারলে ফেডারেশন কাপের হ্যাটট্রিক শিরোপা ঘরে তুলবে তারা। ছাড়িয়ে যাবে চির প্রতিদ্বন্দ্বি মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবকে। বর্তমানে মোহামেডান ও আবাহনীর ফেড কাপের শিরোপার সংখ্যা ১০।

তার আগে বৃহস্পতিবার ফাইনাল পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হন আবাহনীর কোচ জাকারিয়া বাবু, অধিনায়ক ও গোলরক্ষক শহিদুল আলম সোহেল, বসুন্ধরা কিংসের সহকারী কোচ আবু ফয়সাল ও অধিনায়ক তৌহিদুল আলম সবুজ। তারা শিরোপা জয়ের ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ফেডারেশন কাপের টাইটেল স্পন্সর ওয়ালটন গ্রুপের সিনিয়র অপারেটিভ ডিরেক্টর (গেমস অ্যান্ড স্পোর্টস) এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার (ডন) ও বাফুফে সিনিয়র সহ-সভাপতি ও বাফুফে প্রফেশনাল ফুটবল লিগ কমিটির চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম মুর্শেদী, এমপি।

সংবাদ সম্মেলনে আবাহনীর কোচ জাকারিয়া বাবু নিজেদের ফেবারিট বলে উল্লেখ করেন। তাছাড়া বসুন্ধরা কিংস নিয়ে তিনি কিংবা তার ছেলেরা উদ্বিগ্ন নয় বলে জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমরা ভালো খেলে ফাইনালে এসেছি। শেষ ম্যাচেও সেটার ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চাই। ভালো খেরা উপহার দিয়ে শিরোপা জিততে চাই। দলের অধিকাংশ খেলোয়াড়রা অভিজ্ঞ। এর আগেও তারা ফাইনাল খেলেছে। আবাহনীর সামনে হ্যাটট্রিক শিরোপা জয়ের সুযোগ। এমন সুযোগ বার বার আসে না। খেলোয়াড়দের আমি সেটাই বলেছি। আর বসুন্ধরা কিংস ভালো দল। তবে তাদের আমরা অন্য দশটা প্রতিপক্ষের মতোই ভাবছি। ফাইনালে যেকেউ আসতে পারত। সুতরাং বসুন্ধরা কিংসকে নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। এই ম্যাচে আমরাই ফেবারিট। ইনশাল্লাহ আমাদের ছেলেরা তাদের সেরাটা দিয়ে খেলেই আবাহনীর ঐতিহ্য ধরে রাখবে। শিরোপা ঘরে তুলবে।’

অধিনায়ক সোহেল বলেন, ‘এটা আমার কিংবা আমাদের প্রথম ফাইনাল নয়। এর আগেও আমি বেশ কয়েকটি ফাইনাল খেলেছি। কারণ, আমি দশ বছর ধরে আবাহনীর হয়ে খেলছি। আমাদের দলে কোনো ইনজুরি নেই। সবাই সুস্থ্য আছে। আগামীকাল মাঠে আমরা আমাদের সেরাটা দিয়ে খেলেই শিরোপা জিতব।’

বসুন্ধরা কিংস প্রথমবার অংশ নিয়েই ফাইনালে এসেছে। তারা ম্যাচ বাই ম্যাচ ভালো খেলে পৌঁছে গেছে শিরোপার কাছাকাছি। শেষ ম্যাচটিও জিতে তারা ইতিহাস গড়তে চায়। কারণ বসুন্ধরা কিংসের স্লোগানই ‘বর্ন টু বিট’। তারা আবাহনীর মতো ঐতিহ্যবাহী ক্লাবকে হারিয়েই শিরোপা ঘরে তুলতে চায়। বসুন্ধরার সহকারী কোচ আবু ফয়সাল বলেন, ‘বসুন্ধরা কিংসের স্লোগান বর্ন টু বিট। প্রতিপক্ষ আবাহনী অবশ্যই বড় দল। আমরা ঐতিহ্যবাহী ও জায়ান্ট ক্লাব আবাহনীকে হারিয়েই শিরোপা জিতব ইনশাল্লাহ। আমরা ম্যাচ বাই ম্যাচ খেলে ফাইনালে এসেছি। আর একটি মাত্র ম্যাচ। ইনশাল্লাহ এটিও ভালো খেলে জিতে শিরোপা ঘরে তুলব।’

বসুন্ধরা কিংসের অধিনায়ক তৌহিদুল আলম সবুজ বলেন, ‘আগামীকাল ফাইনাল ম্যাচ। আমাদের টার্গেট শিরোপা। বসুন্ধরা কিংস চ্যাম্পিয়ন হওয়ার মতো করেই দল গড়েছে। ম্যাচ বাই ম্যাচ ভালো খেলে আমরা প্রথমবার অংশ নিয়েই ফাইনালে এসেছি। ইনশাল্লাহ ফাইনালেও ভালো খেলে ক্লাব কর্তৃপক্ষকে শিরোপা উপহার দিতে পারব। আমি পুরোপুরি সুস্থ্য নই। কালকে ম্যাচের শুরু থেকে না নামতে পারলেও বদলি খেলোয়াড় হিসেবে মাঠে নামব।’

বেস্ট বায়োস্কোপ স্পোর্টস
২৩ নভেম্বর ২০১৮

Comments

comments

Leave a Reply

Share via
1 Share
%d bloggers like this: