আপাতত সিনেমা না বানানোর সিদ্ধান্ত অমিতাভ রেজার

বেস্ট বায়োস্কোপ, ঢাকা : ‘আয়নাবাজি’ পাইরেসির কবলে পড়ার সামাজিক মাধ্যম ঝড় উঠে। পরিচালক অমিতাভ রেজা চৌধুরী ও বেসরকারি টেলিকম প্রতিষ্ঠান রবির বিরুদ্ধে সমালোচনার তীর ছুড়তে থাকেন সাধারণ দর্শকরা। এসব কিছুর মাঝেই সিনেমা না বানানোর ঘোষণা দিলেন নির্মাতা অমিতাভ রেজা।

নিজের ফেসবুক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে সোমবার বিকেলে এ ঘোষণা দেন তিনি। এ সময় তিনি ছবিটি পাইরেসি হয়ে যাওয়ার জন্য সবার কাছে ক্ষমাও চান। ফেসবুক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে সোমবার বিকেলে বিজ্ঞাপন জগতের নামি এ নির্মাতা নিজেদের ভুলের জন্য ক্ষমা চান। তুলে ধরেন ‘আয়নাবাজি’ নির্মাণ ও বিপণনের নানা দিক। এমনকি আপাতত সিনেমা নির্মাণকে ‘বিদায়’ও জানালেন।

বেস্ট বাযোস্কোপের  পাঠকদের জন্য তার স্ট্যাটাসটি নিচে তুলে ধরা হল—

‘আজ আপনাদের সামনে খুব ভারাক্রান্ত মন নিয়ে কিছু কথা বলতে চাই। আয়নাবাজি আমার আর আমার প্রযোজকের প্রথম সিনেমা। সুতরাং সকল ভুল-ত্রুটি, সীমাবদ্ধতাসহ আমি গত চার বছর অক্লান্ত পরিশ্রম করে সিনেমাটা বানিয়েছি, যার এক বিন্দু ছাড় দেই নাই কোনোকিছুতে। সিনেমা একটা কোলাবরেটিভ আর্ট। আমি একা কিছুই করতে পারতাম না। অনেক মানুষের পরিশ্রম এখানে আছে। এই সব কিছু সম্ভব হয়েছে যখন আমার উপর ভরসা করে কেউ লগ্নি করেছে।

সিনেমা মুক্তির আগে আয়নাবাজি কেউ স্পনসর করতে এগিয়ে আসে নাই। আমার আপত্তি ছিল কোনো নিবেদিত আয়নাবাজি হতে দিব না। মাত্র ২০ হলে আমাদের সিনেমা নিয়েছিল, যা আয়নাবাজির লগ্নি আসার অসম্ভব কিছু। তারপর ভরসা করে আমরা মুক্তি দেই। কোনো প্রিমিয়ার শো ছাড়া সারা বাংলাদেশের মানুষের জন্য মুক্তি দেয়া হয়েছে। টিকিট কেটে সিনেমা দেখাই ছিল আমের ক্যম্পেইনের উদ্দেশ্য। আমি, চঞ্চল ভাইসহ সবাই টিকিট কেটে সিনেমা দেখেছি। আমাদের ডিজিটাল পার্টনার হল শুধু রবি। রবির কাছে সিনেমার রাইট বেঁচার প্রশ্নই আসে না। শুধুমাত্র রবি টিভিতে অর্থাৎ মোবাইল ডিভাইস ছাড়া এটা আর কোথাও দেখা যাবে না। তাও তিনদিনের জন্য, কেউ সাবস্ক্রাইব করলে আমরা রেভিনিউ শেয়ার পাবো আর কিছু না। নেটফ্লিক্স বা ভড প্লাটফর্মের মত এটা একটা টেস্ট ফর ফিউচার ভড প্লাটফর্ম। শর্ত ছিল আমাদের ফুল পাইরেসি প্রোটেকশন যা আমাদের নিউ ফিল্মমেকারদের জন্য জরুরি। কিন্তু বাংলাদেশের সাইবার ক্রিমিনালরা অনেক মেধাবী। তিনটা লিক ফাইল মাত্র ছড়িয়ে দিল।

ভুল সিদ্ধান্ত অবশ্যই ছিল আমাদের, কিন্তু গত দুইদিন যাবত ‘লোভী’, ‘প্রতারক’ বলে আমাদের মাটিতে মিশিয়ে দিচ্ছেন যখন তখন খবর পাই সিয়াটল সাউথ এশিয়ান ফিল্ম ফেস্টিভালে আয়নাবাজি বেস্ট ন্যারেটিভ ফিল্মের অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে। এটাই আয়নাবাজির প্রথম পুরস্কার কিন্তু আমি পুরস্কার পেয়েছি এ দেশের মানুষের কাছে যখন ২০ হল থেকে ৭৪টা হলে নিয়েছেন। আমাদের ভুলের কারণে কষ্ট পেলে আমি ক্ষমাপ্রার্থী।

যে যত গুজব ছড়াক আমি বলছি আয়নাবাজির একমাত্র পাওয়া আপনাদের ভালবাসা। সবাই ভাল থাকুন। বাংলা সিনেমা দেখুন। যদি আপনাদের আর সহযোগিতা কোনদিন পাই সেইদিন পরের সিনেমাটির ঘোষণা দিব। তার আগ পর্যন্ত আমি বিদায় নিচ্ছি আপনাদের কাছ থেকে। লাভ।’

বেস্ট বায়োস্কোপ বিনোদন
২৫ অক্টোবর ২০১৬

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: