বিপিএল : শেষ চারে উঠলো যারা

বেস্ট বায়োস্কোপ, ঢাকা : নিশ্চিত হয়ে গেছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ টি-টোয়েন্ট প্লেঅফের চার দল। ১২ ম্যাচে শেষে পয়েন্ট তালিকায় উপরে থেকে প্লেঅফ নিশ্চিত করেছে ঢাকা, খুলনা, চিটাগাং, রাজশাহী।

সবার আগে এক ম্যাচ হাতে রেখেই বিপিএলের পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান নিশ্চিত করে নেয় সাকিব আল হাসানের ঢাকা ডায়নামাইটস।

আগেই নিশ্চিত হয়ে গেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স এবং গত আসরের ফাইনালিস্ট বরিশাল বুলসের বিদায়।  এ দুই দল বাদে ঢাকার সঙ্গী হয়ে শেষ চার নিশ্চিত হওয়ার দৌড়ে ছিলো চিটাগাং ভাইকিংস (১২), খুলনা টাইটান্স (১২), রাজশাহী কিংস (১০) ও রংপুর রাইডার্স (১০)।  তাই রবিবার ঢাকা-খুলনার ম্যাচ শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত সমর্থকদের মধ্যে ছিলো উত্তেজনা, আকর্ষণ ও প্রতিদ্বন্দ্বিতা।

বিপিএল শুরুর আগে থেকেই সমরে-শক্তিতে বিপিএলে অন্যতম ফেবারিট ঢাকা ডায়নামাইটস। দলে আছেন দুই লংকান কিংবদন্তী কুমার সাঙ্গাকারা এবং মাহেলা জয়াবর্ধনে। এছাড়া ওয়েস্ট ইন্ডিজকে টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন করা রাসেল-ব্রাভো-লুইসরা। এছাড়া সঙ্গে দেশীয়দের মধ্যে সাকিব, মোসাদ্দেক, নাসিররা আছেন দুর্দান্ত ফর্মে।

চিটাগাংয়ের হয়ে দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন তামিম ইকবাল। গেইল আসার পর টানা দুই ম্যাচে ষাটোর্ধ্ব রান। বিপিএলে এবারের আসরে সর্বোচ্চ রানের আসনটি মুশফিককে সরিয়ে দখলে নিয়ে নিলেন তামিম। তার দল চিটাগাং ভাইকিংসও এক টানে চলে এলো পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয় অবস্থানে। তাদের শেষ চারও নিশ্চিত হয়েছে আগে।

আর খুলনা টাইটান্সকে বলতে গেলে একাই টেনে নিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। আসর শুরুর আগে তাদেরকে নিয়ে আশাবাদী ছিলো না খুব বেশি মানুষ। সেই দলটির অধিনায়ক নিজেই যখন দুই ম্যাচে শেষ ওভারের ম্যাজিকে দলকে জেতান। মাঝে মধ্যে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থানও দখল করেছিল তারা। আবার পেছনেও পড়েছে।

তবে সব হিসেব পাল্টে দিয়ে শেষ ম্যাচে জয় তুলে নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে চলে আসে খুলনা টাইটান্স। ঢাকাকে ৬ উইকেটে হারিয়ে ১২ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে শেষ চার নিশ্চিত করে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের দল।

রাজশাহী কিংস অনেকটা সাব্বিরের উপর নির্ভরশীল। প্রথম দিকে সাব্বিরের ব্যাটে ভর করেই জয় পাওয়া রাজশাহী ১০ পয়েন্ট নিয়ে রান রেটের হিসেবে পয়েন্ট টেবিলের চারে আছে।  তাদেরও প্লেঅফ নিশ্চিতে সামনে থেকে নেতৃত্বে দিয়েছেন ক্যারিবিয়ান সুপারস্টার ড্যারেন স্যামি।

বেস্ট বায়োস্কোপ স্পোর্টস
৫ ডিসেম্বর ২০১৬

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: