তিন মৌসুম পর প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা আবাহনীর

বেস্ট বায়োস্কোপ, ঢাকা : পঞ্চমবারের মতো বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা জিতল আবাহনী লিমিটেড। সোমবার উত্তর বারিধারার বিরুদ্ধে ৪-০ গোলে জিতে এক ম্যাচ হাতে রেখেই দেশের শীর্ষ এ ফুটবল প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হলো কোচ জর্জ কোটানের দল। পেশাদার লিগের নবম আসরে এসে তিন মৌসুম পর শিরোপা পুনরুদ্ধার করল দেশের অন্যতম সেরা এ ক্লাবটি।

অবশ্য দিনের প্রথম খেলায় মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্র চটগ্রাম আবাহনীকে ড্রয়ে বাধ্য করে ঢাকা আবাহনীর শিরোপা জয়ের কাজটি সহজ করে দেয়। কেননা চট্টগ্রাম আবাহনীই ছিল ঢাকার দলটির একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী। কিন্তু মুক্তিযোদ্ধার সঙ্গে এগিয়ে গিয়েও ১-১ ড্রয়ে বাধ্য হলে চট্টগ্রাম আবাহনীর সংগ্রহ দাঁড়ায় ২১ খেলায় ৪৪ পয়েন্ট। সমান খেলায় ঢাকা আবাহনীর পয়েন্ট ৪৯। দু দলেরই খেলা বাকি একটি করে।

ঢাকা আবাহনী সর্বশেষ শিরোপা জিতেছিল ২০১১-১২ মৌসুমে। এর আগের তিনটি ছিল হ্যাটট্রিক শিরোপা। ২০০৬-৭, ২০০৭-০৮ ও ২০০৮-০৯ মৌসুমে শিরোপাগুলো জিতেছিল আকাশি নীল জার্সিধারীরা।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে রেলিগেশনের শঙ্কায় থাকা বারিধারার দলটির বিরুদ্ধে শক্তি ও সামর্থ্যের বিচারে আবাহনীর অনায়াস জয়ই ছিল প্রত্যাশিত। তাই দলটির দুই নির্ভরযোগ্য খেলোয়াড় ফরোয়ার্ড সানডে চিজোবা ও মিডফিল্ডার লি টাককে ছাড়া খেলতে নেমেও অনায়াসে জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ দলের সাবেক কোচ কোটানের বর্তমান শিষ্যরা। চিজোব চোটের কারণে ও লি টাক কার্ড দেখার কারণে এদিন মাঠে নামেননি।

আবাহনীর পক্ষে ১৭, ৫৮, ৮৩ ও ৮৬ মিনিটে ইংলিশ ফরোয়ার্ড জনাথন ডেভিডস, বদলি ফরোয়ার্ড নাবিব নেওয়াজ জীবন, মিডফিল্ডার ইমন বাবু ও ফয়সাল মাহমুদ গোলগুলো করেন। এর মধ্যে ইমন বাবুর গোলটি আসে পেনাল্টি থেকে।

অবশ্য ১০ম মিনিটেই গোলের দেখা পেতে পারতো ঢাকা আবাহনী। ডিফেন্ডার ওয়ালী ফয়সালের ফ্রি-কিকে আরেক ডিফেন্ডার তপু বর্মনের হেড গোল লাইন থেকে ফিরিয়ে দেন বারিধারার ডিফেন্ডার আরিফুল ইসলাম। এর সাত মিনিটের মধ্যেই  মাঝমাঠ থেকে ওয়ালী ফয়সালের লম্বা থ্রু পাসে বল পেয়ে জনাথন কোনাকুনি শটে বল জড়িয়ে গোলের সূচনা করেন।

ফরোয়ার্ড জীবন ৫৮ মিনিটে হেডে যে গোলটি করেন তা আসে ইমন বাবুর ক্রস থেকে।  ৮৩ মিনিটে জীবনকে বক্সের মধ্যে ফাউল করেন ডিফেন্ডার আরিফুল ইসলাম। পেনাল্টি থেকে গোলটি করেন ইমন বাবু। ৮৬ মিনিটে ওয়ালী ফয়সালের ফ্রি-কিকে ফয়সাল মাহমুদ ব্যাক হেড নিলে তা সাইড পোস্টে লেগে আছড়ে পড়ে জালে।

এ গোলটির কিছুক্ষণের মধ্যে রেফারি খেলা শেষে বাশি বাজালেই শিরোপা জয়ের আনন্দে মাতোয়ারা হয় আবাহনীর খেলোয়াড় কোচ ও কর্মকর্তারা। গ্যালারিতে থাকা দর্শকরাও ভাসেন এ আনন্দে।

বেস্ট বায়োস্কোপ স্পোর্টস
২৭ ডিসেম্বর ২০১৬

Comments

comments

Leave a Reply

0 Shares
Share via
%d bloggers like this: