তেলেগু ছবিতে বাংলাদেশি মেঘলা, মুক্তি পাচ্ছে ১৫০ হলে

বেস্ট বায়োস্কোপ, ঢাকা: বাংলাদেশের মডেল ও অভিনেত্রী মেঘলা মুক্তা তেলেগু ভাষার একটি ছবিতে অভিনয় করেছেন। এটা পুরনো খবর। নতুন খবর হলো, ‘সাকালাকালা ভাল্লাভুডু’ নামের ওই ছবিটি এবার বড় পর্দায় মুক্তি পেতে যাচ্ছে। ১ ফেব্রুয়ারি সেখানকার ১৫০ হলে মুক্তি পায় মেঘলা অভিনীত প্রথম এই তেলেগু ছবি।

গত ২৭ জানুয়ারি ছবি মুক্তির প্রচারে মেঘলা হায়দরাবাদ গেছেন তিনি। সেখান থেকেই মুঠোফোনে বাংলাদেশি এক সংবাদমাধ্যমকে বলেন, হায়দরাবাদ শহরের বাইরে বেশি সিনেমা হলে মুক্তি দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া দক্ষিণ ভারতের তেলেঙ্গানা, তামিলনাড়ু, কর্নাটক, কেরেলা এবং অন্ধ্র প্রদেশ; এই পাঁচ রাজ্যে ১৫০ সিনেমা হলে মুক্তি পাচ্ছে ‘সাকালাকালা ভাল্লাভুডু’। এছাড়া সেখানকার কয়েকটি বড় বড় মাল্টিপ্লেক্সেও চলবে ‘সাকালাকালা ভাল্লাভুডু’। তামিল, তেলেগু, বলিউডের সুপারস্টারদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে চলবে এ ছবি।

মেঘলা বলেন, এখানে ছবির প্রচারণায় ছোটাছুটি করছি। এই ইন্ডাস্ট্রিতে আমি নতুন। তারপরেও এখানকার মানুষের মধ্যে আমাকে নিয়ে বেশ উৎসাহ দেখতে পাচ্ছি। নিজের কাছে অনেক ভালো লাগছে। তবে নার্ভাস ফিল করছি। মুক্তির পর বিভিন্ন সিনেমা হলে ঘুরে ঘুরে দেখবো। মুক্তির পর আরও প্রমোশনের জন্য সপ্তাহ দেড়েক থাকা লাগবে এখানে।

মেঘলা জানান, তিনি ফেব্রুয়ারি মাসের শেষে দেশে ফিরবেন। কারণ, নতুন কয়েকটি তামিল ও তেলেগু ছবিতে তার কাজের ব্যাপারে আলাপ হয়েছে। সেগুলো চূড়ান্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সেসময় তিনি বলেছিলেন, ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে শুটিং শুরু হয়েছি। তিনমাস অন্ধ্র প্রদেশের ভাইজ্যাক এলাকার পার্বতীপুরম ও নার্সিঙ্গাপুরণে শুটিং হয়েছে। এছাড়া হায়দরাবাদের বিভিন্ন স্টুডিও, রাজমন্দ্রিতেও শুটিং হয়েছে। শুধু তাই নয়, তামিলনাড়ু, কেরেলা ও রামুজি ফিল্ম সিটিতে একদিন শুটিং হয়েছে। তারপর মেঘলা মুক্তির অপেক্ষা করছিলেন। অবশেষে তার অপেক্ষার অবসান হতে যাচ্ছে। ১ ফেব্রুয়ারি ১৫০ হলে মুক্তি পাচ্ছে ছবিটি।

‘সাকালাকালা ভাল্লাভুডু’ পরিচালনা করেছেন শিবা গণেশ এবং প্রযোজনা করেছে ইউভেন টুরিস্ট টকিং অ্যান্ড সিমভা। এই ছবিতে মেঘলার নায়ক তানিশক রেড্ডি। এছাড়া মেঘলার বাবার চরিত্রে অভিনয় করেছেন সুমান তালওয়ার, যিনি দক্ষিণি সিনেমার পরিচিত মুখ। গোটা ভারত বর্ষের চারটি প্রদেশের বিভিন্ন লোকেশনে শুটিং হয়েছিল ছবিটির। নির্মাণের শুরুতে এই ছবিটি নিয়ে ফলাও করে তেলেগুর বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশ হচ্ছিল। এমনকি মেঘলার সাক্ষাৎকার প্রকাশ হয়েছিল। গেল সেপ্টেম্বরে ছবির অফিসিয়াল পোস্টার ও ট্রেলারে মেঘলার উপস্থিতি নজর কাড়ে।

মেঘলা জানান, তেলেগু ভাষার ছবিতে অভিনয় করতে গিয়ে তেলেগু ভাষা আগে রপ্ত করতে হয়েছে। তার কাছে মনে হয়েছে, তিনি যেন বোর্ড পরীক্ষা (এসএসসি) দিয়েছেন। কারণ, পুরো ছবির চিত্রনাট্য লেখা ছিল তেলেগু ভাষায়। মেঘলা সেগুলো বাংলায় অনুবাদ করেন। এরপর সেটা বোঝার চেষ্টা করেছেন। মেঘলা বলেন, ‘ভাষা নিয়ে সেখানে ওয়ার্কশপ করেছি। রাত জেগে তেলেগু ভাষা শিখতে অনেক কষ্ট করতে হয়েছে। আর শট দেয়ার আগে আমাকে অনুশীলন করানো হয়েছে। এর জন্য পরিচালক ও নায়ক দুজনেই আমাকে সাহায্য করেছেন।

তেলেগু সিনেমায় কাজ করে আমি খুবই সন্তুষ্ট। কারণ, কাজ করতে গিয়ে অনেক কমফোর্ট পেয়েছি। তারা অনেক বেশি সহযোগিতা পরায়ণ, কোনো অ্যারোগেন্সি পাইনি তাদের থেকে। তারা নতুনদের ওয়েলকাম করতে জানে। আমি বাংলাদেশ থেকে সেখানে গিয়েছি এটা সবাই জেনে আমাকে ভীষণ সাহায্য করেছেন। বিশেষ করে তেলেগু ভাষা শিখতে সবাই খুব আন্তরিক ছিলেন। ওদের শুটিং, ডান্স প্যাটার্ন সবকিছুই ব্যতিক্রম লেগেছে।

মেঘলা বাংলাদেশের পরিচিত মডেল। কাজ করেছেন দেশের নামী সব ফ্যাশন হাউজের সঙ্গে। এছাড়াও মিউজিক ভিডিওতে দেখা গেছে তাকে। শুধু তাই নয়, ২০১৪ সালে ‘আমি শুধু চেয়েছি তোমায়’ ও সর্বশেষ শাকিব খানের ‘নবাব’ ছবিতে অভিনয় করেছিলেন। অল্পদিনের ক্যারিয়ারে দক্ষিণের নায়িকা হয়েছেন মেঘলা। তিনি আশা করছেন, সবকিছু ছাপিয়ে ছবিটি সাফল্য পাবে।

বেস্ট বায়োস্কোপ বিনোদন
২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

Comments

comments

Leave a Reply

1 Share
Share via
%d bloggers like this: